আজ

  • বুধবার
  • ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ছাগলনাইয়ায় শিশু ফয়সালের পাশে দাঁড়ালেন ইউএনও সাজিয়া তাহের

  • কফিল উদ্দিন মজুমদার
  • ফেনীর ছাগলনাইয়া পৌরসভার দক্ষিণ সতর গ্রামে জটিল চর্মরোগে আক্রান্ত হওয়া শিশু শিক্ষার্থী মো.শাহরিয়ার ইসলামের পাশে দাঁড়ালেন ইউএনও সাজিয়া তাহের।

    জানা গেছে, আজ মঙ্গলবার (৩০ জুন) সকালে জটিল চর্মরোগে আক্রান্ত হওয়া শিশু শিক্ষার্থী মো.শাহরিয়ার ইসলাম ফয়সালের (১৩) বর্তমান অবস্থার একটি ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তুলে ধরেন সংবাদকর্মী নজরুল ইসলাম চৌধুরী। “সাহায্যের আবেদন” শিরোনামে পোস্ট করা ভিডিওটি ছাগলনাইয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া তাহের’র নজরে পড়ার সাথে সাথেই তিনি সংবাদ সংগ্রহকারী নজরুল ইসলাম চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করে ছেলেটির চিকিৎসার খরচ সম্পর্কে জানতে চান এবং তিনি ছেলেটির বাড়ীতে গিয়ে দেখে আসবেন বলে জানান।

    আজ বিকেল সাড়ে তিনটায় মানবিক ইউএনও সাজিয়া তাহের সেই ছেলের বাড়ীতে গিয়ে উপস্থিত হন ও তাত্ক্ষণিক নগদ ১০ হাজার টাকা প্রদান করেন।

    এছাড়াও তাদের জন্য কিছু খাদ্য সামগ্রী পৌছাবেন ও উন্নত চিকিৎসার বিষয়ে সহায়তা করবেন বলেও আশ্বাস দেন। ছেলের অসুস্থতার খবর পেয়ে একজন ইউএনও বাড়ীতে আসাতে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন শিশু ফয়সালের মা রুজিনা বেগম। ইউএনও সাজিয়া তাহেরের এমন মানবিকতায় ধন্যবাদ জানায় শিশুটির মা।

    উল্লেখ্য, শিশু শাহরিয়ার ইসলাম ফয়সাল ছাগলনাইয়া পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড দক্ষিণ সতর হাকিল আলী ফকির বাড়ীর ওমান প্রবাসী মো. সেলিম ও রুজিনা আক্তারের মেঝো ছেলে।

    ফয়সালের মা জানান, জন্মের পর থেকেই ফয়সালের শরীরে এক্সিমার লক্ষণ দেখা দেয়। শরীর বিভিন্ন স্থানের এক্সিমা ছড়িয়ে পড়লেও মাথার অংশ ছাড়া অন্য স্থানের এ রোগ নিরাময় হয়। গত দুই মাস আগে সমস্ত মাথার চুলে জট বেধে যায়। এক পর্যায়ে মাথার মধ্যখানে একটি চিদ্র হয়ে যায় এবং ভেতর পোকা দেখা যায়। মাথার ভেতরে পোকা চলাচল করাতে মানবেতর জীবনযাপন করছে ফয়সাল। মাথার চিদ্রে পোকার চলাচলে অনেক সময় রক্তাক্ত হয়ে যায় বিছানা। বর্তমানে বৈশ্বিক মহামারী করোনা পরিস্থিতির কারনে ফয়সালকে ভালো ডাক্তার কিংবা উন্নত চিকিৎসা সেবা প্রদানও সম্ভব হচ্ছে না।

    তবে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে মাঝে মাঝে ড্রেসিং করানো হচ্ছে। ড্রেসিং করার সময় মাথার চিদ্র থেকে ১৫/২০টি করে পোকাও বের হচ্ছে বলে জানান ফয়সালের মা। অন্যদিকে করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতিতে ফয়সালের প্রবাসী বাবা মো. সেলিম ছেলের চিকিৎসার জন্য চিকিৎসা খরচ পাঠাতে পারছেন না। মির্জার বাজার ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে পডুয়া মেধাবী ছাত্র ফয়সালের চিকিৎসার জন্য টাকা জোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছে তার পরিবার। প্রবাসে থেকেও বাবা ছেলের চিকিৎসা খরব কিংবা পারিবারিক দৈনন্দিন খরচের টাকা পাঠাতে না পেরে অসহায় হয়ে পড়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে মেধাবী শিশু শিক্ষার্থী ফয়সালের চিকিৎসাসেবা প্রদানে সাহায্যের হাত বাড়াতে যদি কেউ এগিয়ে আসতে চান তাহলে নিম্নে দেয়া ব্যাংক একাউন্ট কিংবা বিকাশ নাম্বারে আর্থিক সহায়তা পাঠাতে অনুরোধ করেছেন ফয়সালের পরিবার।

    ব্যাংক একাউন্ট নং- রুজিনা আক্তার (ফয়সালের মা), পুবালী ব্যাংক, ছাগলনাইয়া শাখা, হিসাব নং- ২৩০৮১০১০৮৩১৯৬ এবং বিকাশ নাম্বার- ০১৮৬৫৭৫৮২১২ (ফয়সালের পরিবারের ব্যক্তিগত বিকাশ নাম্বার)।

    ফেনী ট্রিবিউন/এএএম/এটি


    error: Content is protected !! please contact me 01718066090