আজ

  • বুধবার
  • ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফেনীতে বিএমএ ও এভারকেয়ারের আয়োজনে সেমিনার

  • শহর প্রতিনিধি
  • বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ), ফেনীর উদ্যোগে এবং এভারকেয়ার হাসপাতাল, চট্টগ্রামের সহযোগিতায় ফেনীতে ‘হালনাগাদ চিকিৎসার বিকল্প’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বুধবার (১০ জুলাই) আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন চট্টগ্রাম এভারকেয়ার হাসপাতালের মেডিকেল অ্যান্ড রেডিয়েশন অনকোলজি বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. সাইমন প্রদীপ পভমনি ও ইউরোলজি বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. রঘুবীর ভরদ্বাজ।

    এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ফেনী বিএমএ’র সভাপতি প্রফেসর ডা. সাহেদুল ইসলাম কাওছার, সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ শিহাব উদ্দিন, ফেনী সদর হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট (ডেপুটি ডিরেক্টর) ডা. আবুল খায়ের মিয়াজী; এভারকেয়ার হসপিটাল চট্টগ্রাম-এর হেড অব বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ভিনোদ সিং; মেডিকেল সার্ভিসেস বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার ডা. একেএম আরিফ উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

    অনকোলজি বিষয়ে আলোচনাকালে ডা. সাইমন প্রদীপ পাভমনি বলেন, “বাংলাদেশে বিগত কিছু বছরে অনকোলজি রোগীদের সংখ্যা উর্ধ্বমূখী। বিষয়টি দুশ্চিন্তার হলেও একটি সুখবর হলো এদেশের মেডিকেল সেক্টরও বিগত বছরগুলোয় বেশ উন্নতি সাধন করেছে। প্রযুক্তিগত দিক দিয়ে আধুনিক হওয়ার পাশাপাশি উন্নত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে বিভিন্ন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকও রয়েছেন। প্রতিবছর প্রায় দেড় লাখ রোগী এখানে ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে। কিন্তু চিকিৎসাধীন মাত্র ৬০ হাজারের আশেপাশে। বাকিরা অবহেলার কারণে এখনও বুঝেই ওঠেননি যে তারা আক্রান্ত, অথবা কবিরাজি চিকিৎসার অপর নির্ভর করছেন। পরবর্তীতে তারা যখন আমাদের কাছে আসেন, তখন দেখা যায় ক্যান্সার তৃতীয় বা চতুর্থ স্টেজে চলে গেছে। আর সেই অবস্থায় আমরা শত চেষ্টার পরও ভালো কিছু করতে ব্যর্থ হলে চিকিৎসক বা ওষুধের ওপর দোষারোপ করা হয়। অনেকে আবার বিদেশ যাওয়ার প্রস্তুতি নেন। তবে এগুলো না করে যদি নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়, স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন করা হয় এবং রোগকে অবহেলা না করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে আসা হয় তবে এই রোগ দমন করা অসম্ভব কিছু নয়। বাংলাদেশে এভারকেয়ার হসপিটালের মতো বিশ্বমানের চিকিৎসা কেন্দ্র আছে, উন্নত প্রযুক্তি আছে, মানসম্মত ওষুধ আছে, প্রয়োজন শুধু সচেতনতার। সবাই নিজের ও পরিবারের স্বার্থে সচেতন হবেন বলে আমি আশাবাদী।”

    ইউরোলজি বিষয়ে আলোচনাকালে ডা. রাঘুবীর ভারদ্বাজ বলেন, “যেকোন রোগ থেকে বাঁচতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সচেতন থাকা। প্রস্রাবে রক্ত, প্রস্রাব করতে অসুবিধা/ব্যথা, পেলভিক ব্যথা, বা ইরেক্টাইল ডিসফাংশনের মতো সমস্যাগুলো এড়িয়ে না গিয়ে নিকটস্থ ইউরোলজিস্টের সাথে পরামর্শ করা প্রয়োজন। এই সমস্যাগুলো নিয়ে অনেকেই কথা বলতে বা পরামর্শ চাইতে দ্বিধাবোধ করেন, যা মোটেই উচিৎ নয়। সবার প্রতি আমার আহ্বান অন্যান্য রোগের মতো ইউরোলজিক্যাল সমস্যাগুলোও গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করুন এবং সুস্থভাবে জীবনযাপনের অভ্যাস করুন।

    ইভেন্টে ফেনী বিএমএ-এর প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. সাহেদুল ইসলাম কাওসার, ফেনীতে সিএমই প্রোগ্রাম আয়োজনে সহযোগীতা করায় এভার কেয়ার হসপিটাল কর্তৃপক্ষ কে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, “এই ইভেন্টের মাধ্যমে ক্যান্সার চিকিৎসায় ও ইউরোলজি চিকিৎসায় অধুনিক ও উন্নত চিকিৎসা পদ্ধতি সম্পর্কে আমরা আবগত হয়েছি। চিকিৎসা বিজ্ঞানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন বিষয় সম্পর্কে জানতে নিয়মিত সেমিনার করা উচিত।

    ফেনী ট্রিবিউন/এএএম/এটি


    error: Content is protected !! please contact me 01718066090