আজ

  • শুক্রবার
  • ২৪শে মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • ১০ই চৈত্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

“প্রজন্মকে বিসিএসের পাশাপাশি কোরআন-হাদীসের শিক্ষা দিন” – ড. এনায়েতুল্লাহ আব্বাসী

  • নিজস্ব প্রতিনিধি
  • বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ মুফতী ড. সাইয়্যেদ মুহাম্মদ এনায়েতুল্লাহ আব্বাসী ওয়া সিদ্দিকী পীর সাহেব জৈনপুরী বলেছেন, “প্রাথমিক পর্যায় থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত কোরআন-হাদীসের মৌলিক শিক্ষা বাধ্যতামূলক করতে হবে। তাহলে দুদকের প্রয়োজন নেই। পদ্ধতি বদলান। ইংরেজদের ২শ বছরের পুরোনো আইন দিয়ে এখনকার বাংলাদেশ চলতে পারেনা। পশ্চিমাদের শিক্ষানীতি দিয়ে দেশ চলতে পারেনা। শরীয়াহ আইন কায়েম করুন। দূর্নীতি আর চুরি দূর্বিন দিয়ে খুঁজে পাওয়া যাবেনা। শুধু প্রজন্মকে বিসিএস বানালে হবেনা, পরকালে বিশ্বাসী হিসেবে তৈরি করতে হবে।”

    শুক্রবার ফেনী সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের লক্ষীয়ারা ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার আয়োজনে ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে এসব কথা বলেন। মাদরাসা পরিচালনা পর্ষদ সভাপতি ও জেলা জুয়েলার্স সমিতির সভাপতি ইসমাইল হোসেন খোকনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন পাঁচগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক লিটন।

    মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোস্তাফা কামাল জব্বারীর সার্বিক তত্ত্বাবধানে বিশেষ আলোচক ছিলেন ছাগলনাইয়ার মধুগ্রাম জিনারহাট মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা জাকারিয়া। মাদরাসার সহযোগি অধ্যাপক মো: সোলায়মান মজুমদার ও এ্যালমনাই এসোসিয়েশনের প্রতিনিধি মোহাম্মদ ইলিয়াছ সঞ্চালনায় ছিলেন।

    ড. আব্বাসী আরো বলেন, “ইসলাম একটি পূর্ণাঙ্গ জীবন ব্যবস্থা। ইসলাম রাজনীতিক না, রাজনীতি ইসলামে আছে। ইসলামে চরমপন্থা আছে, উগ্রপন্থা নাই। আইনশৃঙ্খলা, স্বাস্থ্য খাত সহ সবক্ষেত্রে চরমপন্থা আছে। ইসলামের ক্ষেত্রে চরমপন্থার কথা কারো কারো মুখ কাচুমাচু হয়ে যায়। রাজনীতি ছাড়া কোন মানুষ থাকতে পারেনা। আলেম-ওলামা শুধু মসজিদ-মাদরাসায় থাকবে না, সমাজ-রাষ্ট্র পরিচালনা করতে হবে। নতুবা চোরের দল ফাঁকা জায়গা দখল করে নিবে। এরিস্টেটল গণতন্ত্র বইতে লিখেছিলেন- দুটো জাতি রাজনীতি করতে পারেনা। এক- দেব-দেবী আর দুই পশু-পাখী। আমি বলি- ফেরেশতা আর পশু-পাখী রাজনীতি করতে পারেনা। আলেমদেরও রাজনীতি করার দরকার আছে। মুসলমানরা রাজনীতি করবে হযরত মুহাম্মদ সা. এর সুমহান আদর্শ নিয়ে। ইসলামী হুকুমাত কায়েম করার জন্য সাহাবায়ে কেরামের নীতি অনুসরণ করবে। শক্তি, টাকা, মিডিয়া আর ম্যান্ডেট থাকলে সুপারপাওয়ার হয়। আগে আমেরিকা ছিল পরাশক্তি। এখন মুসলমানরা মহাশক্তি। ডানপন্থি, বামপন্থি, অবিশ্বাসী, কাফের, মুশরিকদের কাজ হয় দুনিয়ার জন্য। মুসলমানদের কাজের উদ্দেশ্য পরকালের জন্য হবে।”

    এনায়েতুল্লাহ আব্বাসী আরো বলেন, “দেশে অনিরাপদ, অশান্তিতে আাছে। ফেনী থেকে ঢাকায় যাবো। ঢাকায় পৌছা গেলো না, পাওয়া গেলো পঙ্গু হাসপাতালে। কারণ সড়কও অনিরাপদ। কোন বোন কলেজে যাবে, দূর্বৃত্ত তার সতিত্ব কেড়ে নিয়েছে। বাজারে মাছ-মাংসে ফরমালিন। খাদ্য অনিরাপদ। ডাক্তারও অনিরাপদ। প্রেসক্রিপশানে লিখা আছে এমবিবিএস, এফসিপিএস। খোঁজ নিয়ে জানা গেলো তিনি এসএসসি পাশ। ডাক্তারের পরামর্শে এমআরআই করার পর রিপোর্টে এলো ফুসফুসে তেলাপোকা পাওয়া গেছে। কিন্তু ওই রিপোর্ট সিঙ্গাপুর পাঠানোর পর জানা গেলো ফুসফুস নয়, মেশিনেই তেলাপোকা ছিল। দেশে দূর্ণীতির ক্যান্সার লেগে গেছে। দূর্নীতিমুক্ত দেশ গড়তে বড় বড় সার্টিফিকেটের পাশাপাশি আল্লাহর ভয় তৈরি করতে হবে।”

    ফেনী ট্রিবিউন/এএএম/এপি


    error: Content is protected !! please contact me 01718066090