আজ

  • বুধবার
  • ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সোনাগাজীতে ইন্টারনেটে অডিও ছেড়ে দেয়ার হুমকি : গৃহবধূকে আটকে স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর

  • সোনাগাজী প্রতিনিধি
  • ফেনীর সোনাগাজীতে ইন্টারনেটে অডিও রেকর্ডিং ছেড়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে গৃহবধূকে আটকে রেখে তিনটি অলিখিত স্টাম্পে স্বাক্ষর নিল বখাটেরা। ৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে দশটায় উপজেলার আমিরাবা ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের আলমাস চৌকিদার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

    ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও পুলিশ জানায়, সোনাপুর গ্রামের আলমাস চৌকিদার বাড়ির আবদুল সাত্তারের ছেলে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও বখাটে মহিন উদ্দিনের সাথে দুই বছর পূর্বে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের চর শাহাপুর গ্রামের এক সিএনজি অটোরিক্সা চালকের স্ত্রীর সাথে পরিচয় হয়। ওই অনুষ্ঠানে তার ফোন নাম্বার সংগ্রহ করে মুঠোফোনে তার সাথে প্রমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। তার সাথে কথোপোকথনের অডিও রেকর্ডিং করে মহি উদ্দিন। এসব অডিও রেকর্ডিং ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে বিগত দেড় বছর যাবৎ বিভিন্ন সময় ওই নারী থেকে এক লাখ ৭০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় মহি উদ্দিন। স্বামীর সংসার টিকাতে ওই নারী বিভিন্ন লোকদের কাছ থেকে ঋণ নিয়ে তাকে টাকাগুলো প্রদান করেন। গত কয়েকদিন যাবৎ পূণরায় ৫০ হাজার টাকা দাবি করে মহি উদ্দিন। নিরুপায় হয়ে বিষয়টি তার স্বামীকে খুলে বললে স্বামী মহিন উদ্দিনকে মামলা করার ভয় দেখান।

    বৃহস্পতিবার ওই নারী তার পিতার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়িতে ফেরার পথে আমতলী নামক স্থানে সিএনজি অটোরিক্সা থেকে নামিয়ে টমটমে তুলে আলমাস চৌকাদার বাড়ির পরিত্যক্ত একটি ঘরে নিয়ে যায় মহিন উদ্দিন ও তার সহযোগি রাসেল। সেখানে তাকে আটকে রেখে রাত সাড়ে দশটার দিকে ওই নারীর পিতা নূর মোহাম্মদকে খবর দিয়ে ঘটনাস্থলে নিয়ে যান তারা। সেখানে নিয়ে ওই নারী ও তার পিতার কাছ থেকে ভবিষ্যতে কোন মামলা করতে পারবেনা মর্মে তিনটি অলিখিত স্টাম্পে জোর পূর্বক স্বাক্ষর নেন মহিন উদ্দিন ও তার সহযোগি রাসেল।

    শুক্রবার সকালে স্টাম্প ফেরতের বিনিময়ে তিনটি চেক দাবি করলে ওই নারী ও তার পরিবারের সদস্যরা আতঙ্কিত হয়ে যায়। স্থানীয় লোকজনদের জানিয়ে বিকালে ওই নারীর পিতা নূর মোহাম্মদ বাদি হয়ে মহিন উদ্দিন ও তার সহযোগি একই এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে মো. রাসেলের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

    সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

    ফেনী ট্রিবিউন/এএএম/এটি


    error: Content is protected !! please contact me 01718066090