আজ

  • সোমবার
  • ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ছাগলনাইয়ায় গৃহবধূর মৃত্যু : স্বামীসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

  • ছাগলনাইয়া প্রতিনিধি
  • ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার মহামায়া ইউনিয়নের উত্তর সতর গ্রামের নুর বক্স মিয়াজী বাড়ি থেকে নাসরিন আক্তার মনজু (২৮) নামে অন্ত:স্বত্বা গৃহবধূর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় স্বামী মো. মোমিনসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ২/৩জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে ছাগলনাইয়া থানায় মামলাটি দায়ের করেন নিহত নাসরিন আক্তার মনজুর ছোট ভাই মো. নাজিম উদ্দিন। মামলার আসামীরা হলেন- স্বামী মো. মোমিন (৩৫), শাশুড়ী জাহানারা বেগম (৬০) ও ননদ মাবিয়া বেগম (৩৫)।

    মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ফেনী সদর থানার জগইরগাঁও গ্রামের আজগর ভূঁইয়া বাড়ির মো. আবুল হোসেন এর মেয়ে নাসরিন আক্তার মনজুর সঙ্গে ছাগলনাইয়া উপজেলার মহামায়া ইউনিয়নের উত্তর সতর গ্রামের নুর বক্স মিয়াজী বাড়ির মৃত আমিনুল হকের পুত্র মো. মোমিন এর ২০০৮ সালে বিয়ে হয়। নাসরিন আক্তার মনজু ৫মাসের অন্তঃস্বত্বা ছিল। সাজ্জাত হোসেন নীরব নামে তার ৮ বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে নাসরিন আক্তার মনজুর সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তার স্বামী, শাশুড়ী, দেবর ও ননদদের মনোমালিন্য চলে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় শশুর বাড়ির লোকজন যৌতুকের জন্য শারীরিক নির্যাতন করে আসছে। ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় ৬/৭মাস পূর্বে নাসরিন আক্তার মনজুর স্বামী মো. মোমিন সউদী আরব থেকে বাংলাদেশে চলে আসে। পুনরায় বিদেশ যাওয়ার জন্য টাকার প্রয়োজন হলে স্ত্রী নাসরিন আক্তার মনজু এর নিকট স্বামী মো. মোমিন দশ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে। যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে নাসরিন আক্তার মনজুর উপর শুরু হয় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন। গুরুতর অসুস্থ হয়ে যাওয়ার পর ৪/৫দিন পূর্বে ফেনী সদর হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে তাকে শশুর বাড়িতে নিয়ে যায়। ৩ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় স্বামী শাশুড়ী ও ননদরাসহ অজ্ঞাতনামা লোকজন যৌতুকের টাকার জন্য নাসরিন আক্তার মনজুকে ফের মারধর করলে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে এসময় তার মুখ দিয়ে ফেনা বের হতে থাকে। গুরুতর আহত অবস্থায় নাসরিন আক্তার মনজুকে ছাগলনাইয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। হাসপাতালে নেয়ার পথে সকাল ১১টায় এ্যাম্বুলেন্সে সে মারা যায়। শশুর বাড়ির লোকজন নাসরিন আক্তারের লাশ বাড়িতে নিয়ে দাফনের চেষ্ট চালায়।

    খবর পেয়ে বিকাল ৩টায় ছাগলনাইয়া থানার পুলিশ গৃহবধূ নাসরিন আক্তারের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায় এবং নিহতের স্বামী মো. মোমিন (৩৫), শাশুড়ী জাহানারা বেগম (৬৫), ননদ রাবেয়া (২৮) ও সাফিয়াকে (২৬) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে। বুধবার বাদ আছর ফেনী সদর থানার জগইরগাঁও গ্রামে পিতার বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে নাসরিন আক্তার মনজুর লাশ দাফন করা হয়। মামলার প্রধান আসামী স্বামী মো. মোমিন ও শাশুড়ী জাহানারা বেগমকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আসামী মাবিয়া বেগম (৩৫) পলাতক রয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ননদ রাবেয়া ও সাফিয়াকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।

    সম্পাদনা : এএএম/এপি/এটি


    error: Content is protected !! please contact me 01718066090