আজ

  • বুধবার
  • ১৬ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দুর্ঘটনায় পা হারানো দাগনভূঞার বাবুর মানবেতর জীবন-যাপন

  • দাগনভূঞা প্রতিনিধি
  • সড়ক দূর্ঘটনায় ডান পা হারানো ফেনীর দাগনভূঞার ফজলে আলী বাবু (৪০) মানবেতর জীবন যাপন করছে। ক্ষতিপূরণ দেয়নি ইসহাক পরিবহন কর্তৃপক্ষ।

    ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, পৌর শহরের কৃষ্ণরামপুর গ্রামের হাজী মোবারক আলী সাহেবের বাড়ির মৃত হাছান আলীর ছেলে ফজলে আলী বাবু গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর বিকেলে চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড উপজেলার মাদাম বিবির হাট আছাদি স্টীল শিপ ইয়ার্ড সংলগ্ন স্থানে দূর্ঘটনার শিকার হন। ইসহাক পরিবহনের ট্রাক (চট্ট মেট্রো : ট-০৫-০০৯৯) চাপায় গুরুতর আহত হন বাবু। খবর পেয়ে ইসহাক পরিবহনের মালিক মো. ইসহাক মেম্বার ও ট্রাক চালক আনোয়ার ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নগদ বিশ হাজার টাকা প্রদান করেন এবং চিকিৎসা চালিয়ে যেতে বলেন। পরবর্তীতে চিকিৎসার ক্ষতিপূরণ বাবদ অর্থ দেয়ার আশ্বাস দেন। ওইদিন স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় বাবুকে উদ্ধার করে প্রথমে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল অর্থোপেডিক্স এন্ড ট্রমাটোলজি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জাতীয় হৃদরোগ ইনষ্টিটিউটে প্রেরন করেন। সেখান থেকে অবস্থার অবনতি ঘটলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জাতীয় অর্থোপেডিক্স হাসপাতাল ও পুর্নবাসনে স্থানান্তর করেন। অর্থোপেডিক্স সার্জন প্রফেসর আবদুর রব আহতের ডান পা কেটে পেলেন। দীর্ঘদিন চিকিৎসা করতে গিয়ে সহায় সম্ভল বিক্রি করে দেন আহতের পরিবার। স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে মানবেতর জীবন যাপন করছেন বাবু।

    সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পা হারানো বাবু লেগ স্ট্রেনের উপর ভর করে চলাচল করছে। এক সময় সুস্থ সবল লোকটি পঙ্গুত্ত্ব বরণ করছে আজ। সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে জড়িয়ে ধরে পঙ্গু বাবু ও তার পরিবারে লোকজনের কান্নাকাটি এ সময় আকাশ বাতাস ভারি হয়ে ওঠে। বসতঘর ছাড়া জীবনের সকল সম্ভল বিক্রি করে চিকিৎসার কাজে ব্যয় করা হয়। প্রতিদিন ৪/৫ শত টাকার ঔষধ সেবন করতে হয়। অর্থের অভাবে ঔষধ ক্রয় করা সম্ভব হয় না।

    আহত বাবু জানান, কাজের সন্ধানে তিনি সীতাকুন্ডে যান। ভাগ্যের নির্মম পরিহাস। ইসহাক পরিবহনের ঘাতক ট্রাকের চাপায় সকল স্বপ্ন ভেঙ্গে ছুরমার হয়ে গেছে আমার।

    আহতের ছোট ভাই শওকত আলী শাহীন জানান, আমার ভাইয়ের চিকিৎসায় ছয় লাখ টাকা খরচ হয়েছে। ইসহাক পরিবহনের মালিকের সঙ্গে ক্ষতিপূরণের ন্যায্য দাবী পাওয়ার আশায় ধর্না দেয়ার পরও ক্ষতিপূরণ না দিয়ে উল্টো হুমকি প্রদান করছে।

    মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটির দাগনভূঞা শাখার সভাপতি এডভোকেট মিজানুর রহমান সেলিম বলেন, ঘটনাটি বড়ই দুঃখজনক। আহতের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করা ইসহাক পরিবহন কর্র্তৃপক্ষের উচিৎ বলে আমি মনে করি।

    ফেনী ট্রিবিউন/এএএম/এটি/এপি


    error: Content is protected !! please contact me 01718066090