আজ

  • শুক্রবার
  • ১৬ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

১২ বছর বিনা বিচারে জেল খাটার পর মুক্তি পেলো সোনাগাজীর বিল্লা মানিক

  • নিজস্ব প্রতিনিধি
  • দীর্ঘ ১২ বছর ৯ দিন বিনা বিচারে জেল খাটার পর ফেনীর সোনাগাজির আব্দুর রহমান মানিক প্রকাশ বিল্লা মানিক আজ সোমবার বিকালে ফেনী জেলা কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পান।

    জানা গেছে, ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার চর চান্দিয়া গ্রামের সিদ্দিক মিয়ার পুত্র আব্দুর রহমান মানিককে বিগত ২০০৮ সালের ২২ আগষ্ট সোনাগাজী থানার পুলিশ সোনাগাজী থানার মামলা নং ১৪, জিআর নম্বর ১১৫/২০০৮ তারিখ ১৭/০৭/২০০৮ ধারা ১৪৩/৩৬৪/৩০২/৩৪ ধারা এই মামলার এজাহার নামীয় আসামী হিসেবে গ্রেফতার করে। পরদিন ২৩ আগষ্ট কোর্টে চালান করে। সেই থেকে এই আসামী মানিক দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় ধরে বিনা বিচারে জেল খেটে আজ সোমবার বিকাল সাড়ে ৫ টায় ফেনী কারাগার থেকে এডভোকেট এম. শাহজাহান সাজুর প্রচেস্টায় জামিনে মুক্তি পায়।

    মামলার বাদি সোনাগাজী উপজেলার পালগিরি গ্রামের মৃত জসিম উদ্দিনের স্ত্রী ফিরোজা আক্তার রেখা অভিযোগ করেন, আসামী আব্দুর রহমান মানিক সহ ১১ জন আসামী বাদির স্বামী জসিম উদ্দিন কে বিগত ২০০৮ সালের ২৬ মে সন্ধ্যা ৭টার সময় সকলে মিলে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলে। সোনাগাজী থানা পুলিশ বিগত ২০০৯ সালের ২৬ আগষ্ট আসামী মানিক সহ ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলাটি দায়রা মামলা নং ৩৩৬/২০১১ হিসেবে ফেনীর অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতে এখনও বিচারাধীন আছে। এই মামলায় এই পর্যন্ত ৮ জন স্বাক্ষী আদালতে স্বাক্ষ্য প্রদান করেন। ২০১৮ সাল থেকে এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সোনাগাজী থানার সাবেক এসআই মো. মেজবাহ উদ্দিন, এসআই মো. আব্দুল ওহাব ও এসআই দুলাল চন্দ্র ভৌমিকের স্বাক্ষীর জন্য আদালতে দিন ধার্য্য আছে।

    বিগত ২০১৯ সালের ৮ জুলাই এই মামলায় বিজ্ঞ আদালত, স্বরাষ্ট্র সচিব, ডিআইজি ও পুলিশ সুপারের, মাধ্যমে তদন্তকারী কর্মকর্তাদের প্রতি গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করলেও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাগন আজ পর্যন্ত আদালতে হাজির না হওয়ায় মামলাটির বিচার নিস্পত্তি করা সম্ভব হয়নি।

    উল্লেখ্য, সোনাগাজির বল্টন হত্যা ও বর্তমান মামলা সহ মোট ৫টি মামলায় বিগত ২০০৮ সালের ২২ আগষ্ট আব্দুর রহমান মানিককে পুলিশ গ্রেফতার করে। পরদিন আদালতে চালান করে। ইতিমধ্যে আব্দুর রহমান মানিকের মা ও ইন্তেকাল করেন। জেলে থাকায় মায়ের জানাযায় অংশ নিতে পারেন নাই মানিক।

    এডভোকেট এম. শাহজাহান সাজু বলেন, ২০১৮ সালের ২০ জুলাই মানিকের স্ত্রী ও তার ছেলে, মেয়েরা ‘সাজু এন্ড এসোসিয়েটস’ কার্য্যালয়ে এলে আমরা এই মামলার দায়িত্ব নিয়ে আসামীর জামিনের জন্য সর্বোচ্চ আইনী প্রচেস্টা চালাই। আমাদের সর্বাত্বক প্রচেস্টার ফলে ২০২০ সালের ২৭ আগষ্ট ফেনীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত এই মামলায় আসামি আব্দুর রহমান মানিককে জামিন দেয়ার পর আজ ১২ বছর ১০ দিন পর সে ফেনী জেলা কারাগার জামিনে মুক্ত হলেন। ইতিমধ্যে তার বিরুদ্ধে দায়ের করা অপর দুইটি মামলায় ও তিনি খালাশ পেয়েছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে, ওয়ারেন্ট দেয়ার পর ও আদালতে না আসা, বাদী হয়ে আদালতে স্বাক্ষী না আনা, বিনা বিচারের বছরের পর বছর জেলে আটক রাখা, আদালত কতৃক দোষী না হওয়া পর্যন্ত কাউকে দোষী বলা কতটা যৌক্তিক তা পাঠক বিবেচনা করবেন।

    ফেনী ট্রিবিউন/এএএম/এটি


    error: Content is protected !! please contact me 01718066090