আজ

  • রবিবার
  • ১২ই জুলাই, ২০২০ ইং
  • ২৮শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সিন্দুরপুরে ছেলেদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে থানায় অভিযোগ মায়ের

  • দাগনভূঞা প্রতিনিধি
  • দাগনভূঞা উপজেলার সিন্দুরপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুরে ছেলেদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে গত ৩০ জুন মঙ্গলবার দাগনভূঞা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ৮০ বছর বয়স্ক মা করফুলের নেছা। তিনি পাঁচ ছেলেকে বিবাদী করে ও অপর দুই ছেলেকে স্বাক্ষী করে থানায় এসডিআর নং-৭৪৯, তারিখ-৩০/০৬/২০২০ এই অভিযোগ দায়ের করে।

    বিবাদীরা হলেন-নাছির আহাম্মদ, কবির আহাম্মদ, জহির আহাম্মদ, জাফর আহাম্মদ ও ফয়েজ আহাম্মদ, সর্ব পিতা-মৃত নুর ইসলাম এবং স্বাক্ষীরা হলেন-দলিল আহাম্মদ দুলাল ও বেলাল আহাম্মদ, সর্ব পিতা-মৃত নুর ইসলাম, সাং-লক্ষ্মীপুর (নুরুজ্জামান হাজী বাড়ী, থানা-দাগনভূঁইয়া, জেলা-ফেনী।

    অভিযোগ সূত্রে জানায়, বৃদ্ধা করফুলের নেছার আট ছেলে ও তিন মেয়ে রয়েছেন। তাঁর স্বামী নুর ইসলাম ২০০১ সালে মৃত্যুবরণ করেন। স্বামীর মৃত্যুর পর রেখে যাওয়া বসত ঘরে তিনি বসবাস করেন। কিন্তু তাঁর স্বামীর জায়গা সম্পত্তি এখনও ভাগ বন্টন হয়নি। ইতিমধ্যে আমার ছেলে বিবাদী নাছির আহাম্মদ, কবির আহাম্মদ, জহির আহাম্মদ, জাফর আহাম্মদ ও ফয়েজ আহাম্মদ সর্ব পিতা-মৃত নুর ইসলাম, সাং-লক্ষ্মীপুর (নুরুজ্জামান হাজী বাড়ী, থানা-দাগনভূঁইয়া, জেলা-ফেনী।

    আমি বসত ঘরের যে রুমে বসবাস করি, উক্ত রুমটি দখল করার জন্য আমার ছেলে নাছির আহম্মদ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বাকী বিবাদীগণ তাকে সহযোগিতা করিয়া আসিতেছে। বিবাদীদের অত্যাচারে আমার মেয়েরা আমাকে দেখতে আসতে চাহিলেও সকল বিবাদীগণ আমার মেয়েরা যাতে আমার কাছে আসতে না পারে আমার মেয়েদেরকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করিয়া আসিতেছে।

    আমার ছেলে বিবাদী নাছির আহাম্মদ ও কবির আহাম্মদ বিভিন্ন সময়ে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে এবং আমার রুমের রক্ষিত জিনিসপত্র ফেলে দেয়া ও আমাকে রুম থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দিয়ে আসছে। এ বিষয়ে সামাজিক ও ঘরোয়াভাবে গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে একাধিকবার বৈঠক হলেও বিবাদীরা কাউকে মানে না। এছাড়াও তারা আমার ভরনপোষন এবং চিকিৎসা খরচের কোন খোঁজ খবর রাখে না। আমার ছেলে দলিল আহাম্মদ দুলাল ফেনীতে বসবাস করলেও আমার চিকিৎসা খরচসহ যাবতীয় ব্যয়ভার বহন করে।

    বৃদ্ধা করফুলের নেছা স্বামীর রেখে যাওয়া বসত ঘরে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করতে এবং ছেলেদের অত্যাচার থেকে রক্ষা পেতে দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নিকট প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান।

    ফেনী ট্রিবিউন/এএএম/এটি


    error: Content is protected !! please contact me 01718066090