আজ

  • রবিবার
  • ২৮শে মার্চ, ২০২০ ইং
  • ১৫ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

কোম্পানীগঞ্জে ‘গাঙচিল’ সিনেমার শেষ লটের শুটিং শুরু

  • ইকবাল হোসেন মজনু
  • নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) থেকে আবারও শুরু হয়েছে ‘গাঙচিল’ সিনেমার শেষ লটের শুটিং। এদিন নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে সিনেমায় অভিনিত চেয়ারম্যানের মনোনয়নপত্র সংগ্রহের দৃশ্য ধারণ করা হয়। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ‘গাঙচিল’ উপন্যাস অবলম্বনে সিনেমাটি নির্মাণ করছেন নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল। নির্মাতা জানালেন সিনেমাটির প্রায় সব অভিনেতা-অভিনেত্রীরা শেষ লটের শুটিংয়ে অংশ নিবেন।

    এই ছবিতে প্রধান নায়ক-নায়িকা ফেরদৌস ও পূর্ণিমা। এখানে নায়ক ফেরদৌস সাংবাদিক চরিত্রে অভিনয় করছেন আর নায়িকা পূর্ণিমাকে দেখা যাবে এনজিও কর্মীর চরিত্রে। একটি বিশেষ চরিত্রে দেখা যাবে কলকাতার অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তাকে। ছবিটি প্রযোজনা করছে ইচ্ছেমত ও নুজহাত ফিল্মস।

    গাঙচিল ছবির নির্মাতা নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল শনিবার দৈনিক ফেনীর সময়কে বলেন, ‘নোয়াখালীতে ছবিটির শেষ লটের শুটিং করতে এসেছি। শনিবার (পহেলা ফেব্রুয়ারি) থেকে টানা ৭দিন চলবে এ শুটিং। এরপর ঢাকায় অল্প কিছু কাজ করলেই ছবির কাজ শেষ হয়ে যাবে।’

    ‘গাঙচিল’-এর গল্প সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের স্বনামের প্রকাশিত উপন্যাস থেকে নেওয়া। মন্ত্রীর নিজ নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জের চরএলাহী ইউনিয়নের ‘গাঙচিল’ গ্রামের নামে এ ছবির নামকরণ করা হয়ছে। মূলত এ গ্রামের মানুষের জীবনযাত্রার চিত্র নিয়ে উপন্যাসটি রচিত হয়েছে।

    এদিকে শুক্রবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল থেকে শাসকষ্টের কারণে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

    এ বিষয়ে নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল বলেন, ‘আমরা শুটিংয়ের জন্য যাত্র শুরুর আগেই হাসপাতালে খোঁজ নিয়েছি, আমাদের মন্ত্রী মহোদয় এখন ভালো আছেন। উনার শ্বাসকষ্ট বেড়ে গিয়েছিলো, প্রেসার বেড়ে গিয়েছিল, এখন সেটা নিয়ন্ত্রণে এসেছে। সবাই উনার জন্য দোয়া করবেন।’

    ‘গাঙচিল’র চিত্রনাট্য লিখেছেন মারুফ রেহমান ও প্রিয় চট্টোপাধ্যায়। সিনেমায় অতিথি হিসেবে একটি চরিত্রে অভিনয় করছেন কলকাতার অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। আরও অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান, আনিসুর রহমান মিলন, আহসানুল হক মিনু প্রমুখ।


    error: Content is protected !! please contact me 01718066090